শিরোনাম:

‘লাভেলো’ গাংনী গণিত উত্সবে মকবুল হোসেন এমপি ॥ আগামি বিশ্বে গণিত বিষয়ে নেতৃত্ব দেবে গাংনীর ছাত্রছাত্রীরা

‘লাভেলো’ গাংনী গণিত উত্সবে মকবুল হোসেন এমপি ॥ আগামি বিশ্বে গণিত বিষয়ে নেতৃত্ব দেবে গাংনীর ছাত্রছাত্রীরা
image_pdfimage_print

মেহেরপুর নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম, ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭:

স্কুল-কলেজগামী ছেলেমেয়েদের দিকে আরো বেশি নজর রাখার আহবান জানালেন মেহেরপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন। সোমবার সকালে গাংনী সরকারী ডিগ্রি কলেজ মাঠে ‘লাভেলো’ গণিত উত্সবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি বলেন, মাদক ও জঙ্গিবাদের ছোবলে অনেক ছেলেমেয়ে বিপদগামী হচ্ছে। আবেগ ও রঙ্গিন স্বপ্ন দেখিয়ে তাদেরকে নামানো হচ্ছে ভিন্ন পথে। যার ফলে একটি সুন্দর জীবন অকালেই ঝরে যাচ্ছে।
শিক্ষক ও অভিভাবকদেরকে ছেলেমেয়েদের প্রতি আরো বেশি নজরদারির পরামর্শ দিয়ে মকবুল হোসেন আরো বলেন, আজকের এই উত্সব গণিত ভীতি দুর করতে সহায়ক হবে। আগামি দিন গণিত বিশ্বে গাংনীর এই ছেলেমেয়েরাই নেতৃত্ব দেবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।
প্রতিযোগিতায় এ উপজেলার বিভিন্ন প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নয় শতাধিক ছাত্রছাত্রী অংশ গ্রহণ করছে।
সকাল দশটার দিকে সরকারী কলেজ প্রাঙ্গনে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন ও পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে উত্সবের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন গাংনী গণিত পরিবার পরিচালক আল আমিন আশিক। প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক আবির সাফি বিন্দুর সঞ্চালনায় স্বাগত বক্তব্যে উত্সবের বিষয়বস্তু তুলে ধরেন আয়োজক কমিটির আহবায়ক শাহরিয়ার নাঈম শাইখ। এবারের উত্সবের স্পন্সর লাভেলো আইসক্রীম।
বিশেষ অতিথি ছিলেন গাংনী সরকারী কলেজ অধ্যক্ষ মনিরুল ইসলাম, পাবনার বেড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসার আনোয়ার হোসেন, বিশিষ্ট সংগঠক সিরাজুল ইসলাম ও অধ্যাপক আব্দুর রশিদ। গণিত প্রতিযোগিতা পরিচালনায় ছিলেন বিশিষ্ট কথা সাহিত্যিক ও মুক্তিযুদ্ধের গবেষক রফিকুর রশিদ রিজভী, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম শফিকুল আলম, জেলা শিক্ষক সমিতি সভাপতি সৈয়দ জাকির হোসেন, সাবেক কটন ইউনিট অফিসার আব্দুল ওয়াদুদ, প্রভাষক আবু সায়েম পল্টু ও মহিবুর রহমান মিন্টু।
উপস্থিত ছিলেন গাংনী প্রেস ক্লাব সভাপতি রমজান আলী, সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ-উদ-দৌলা রেজা, উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক শফি কামাল পলাশ ও হাইকোর্টের তরুণ আইনজীবি হুমায়ন কবীর প্রমুখ।
দ্বিতীয় পর্বে গণিতের গুনি শিক্ষকদের সংবর্ধনা ও বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। প্রতিযোগিতায় বিজয়ীসহ অংশ গ্রহণকারীদের মধ্যে বাছাইকৃত ছাত্রছাত্রীদেরকে প্রশিক্ষণ দিয়ে জাতীয় গণিত অলিম্পিয়াডের জন্য প্রস্তুত করবে গণিত পরিবার।
প্রসঙ্গত, প্রতি বছর জাতীয় গণিত অলিম্পিয়াডে গাংনী গণিত পরিবারের সদস্যরা সফলতা পাচ্ছেন। কুষ্টিয়া আঞ্চলিক প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের বেশিরভাগ সদস্যই গাংনী গণিত পরিবারের। ক্ষুতে গণিতবীদদের হাতের ছোয়ায় গাংনী গণিত পরিবার সারা দেশের মধ্যে একটি আলোকিত নাম হিসেবে পরিচিতি পাচ্ছে।

মন্তব্য করুন